Model Activity Task Class 10 Geography January 2022 Part 9 | দশম শ্রেণী ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক জানুয়ারী ২০২২

নমস্কার বন্ধুগণ, তোমাদের স্বাগতম আমাদের estudypoint ওয়েবসাইটে। যেহেতু করোনা সংক্রমণ আবার বেড়ে চলেছে সেই দিকে নজর রেখে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ থেকে বছরের প্রথম অ্যাক্টিভিটি টাস্ক তোমাদের বিদ্যালয়ের মাধ্যমে দিয়ে দিয়েছে এবং আজকে আমরা জানুয়ারী মাসের দশম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্কের সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছি।

Model Activity Task Class 10 Geography January 2022 Part 9

Model Activity Task Class 10 Geography January 2022

দশম শ্রেণী
ভূগোল
পূর্ণমান: ২০


১. বিকল্পগুলি থেকে ঠিক উত্তরটি নির্বাচন করে লেখাে :     ১x৩=৩

১.১ নীচের যে প্রক্রিয়াটি বহির্জাত প্রক্রিয়া নয় সেটি হলাে— 

(ক) আবহবিকার
(খ) নগ্নীভবন 
(গ) অগ্ন্যুদগম
(ঘ) পুঞ্ছিত ক্ষয় 

উত্তর: অগ্ন্যুদগম প্রক্রিয়াটি বহির্জাত প্রক্রিয়া নয়

১.২ যে প্রক্রিয়ায় নদীবাহিত প্রস্তরখণ্ড পরস্পরের সংঘর্ষের ফলে ভেঙে গিয়ে নুড়ি, বালি প্রভৃতিতে পরিণত হয়; তাকে বলে— 

(ক) অবঘর্ষ ক্ষয়
(খ) দ্রবণ ক্ষয় 
(গ) জলপ্রবাহ ক্ষয়
(ঘ) ঘর্ষণ ক্ষয় 

উত্তর: ঘর্ষণ ক্ষয় প্রক্রিয়ায় নদীবাহিত প্রস্তরখণ্ড পরস্পরের সংঘর্ষের ফলে ভেঙে গিয়ে নুড়ি, বালি প্রভৃতিতে পরিণত হয়

১.৩ ঠিক জোড়টি নির্বাচন করাে —

(ক) নদীর অধিক নিম্নক্ষয়—প্লাবনভূমি 
(খ) নদীর অধিক পার্শ্বক্ষয়—গিরিখাত 
(গ) নদীর গতিপথে কঠিন শিলার নীচে কোমল শিলার অবস্থান—জলপ্রপাত
(ঘ) নদীর উচ্চগতিতে অধিক ক্ষয়কাজ—বদ্বীপ।

উত্তর: (গ) নদীর গতিপথে কঠিন শিলার নীচে কোমল শিলার অবস্থান—জলপ্রপাত


২.১ উপযুক্ত শব্দ বসিয়ে শূন্যস্থান পূরণ করাে :    ১x২=২ 

২.১.১ মরু অঞ্চলে বায়ু ও জলধারার মিলিত কার্যের ফলে পেডিমেন্টের সম্মুখে গড়ে ওঠা সঞ্জয়জাত ভূমিরূপ হলাে ______________ l

উত্তর: মরু অঞ্চলে বায়ু ও জলধারার মিলিত কার্যের ফলে পেডিমেন্টের সম্মুখে গড়ে ওঠা সঞ্জয়জাত ভূমিরূপ হলাে বাজাদা l

২.১.২ নদীর ক্ষয়কার্যের ফলে নদীখাতে সৃষ্টগর্ত হলাে ______________ l

উত্তর: নদীর ক্ষয়কার্যের ফলে নদীখাতে সৃষ্টগর্ত হলাে মন্থকূপ l


২.২ ‘ক’ স্তম্ভের সঙ্গে ‘খ’ স্তম্ভ মেলাও :    ১x৩=৩

‘ক’ স্তম্ভ‘খ’ স্তম্ভ
২.২.১. নদীর ক্ষয়, বহন ও সঞ্জয় কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপ ৩. অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ
২.২.২. হিমবাহের ক্ষয়কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপ১. এরিটি
২.২.৩. বায়ুর অপসারণ সৃষ্টগর্ত২. ব্লো-আউট 

৩. নীচের প্রশ্নগুলির সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :     ২x২=৪ 

৩.১ মরুদ্যান কীভাবে সৃষ্টি হয়? 

উত্তর: মরু অঞ্চলে বাযুর অপসারণ প্রক্রিয়ায় দীর্ঘদিন ধরে কোন একটি অঞ্চলের বালিরাশি অপসারিত হতে থাকলে অঞ্চলটি ক্রমশ অবনমিত হয়ে পড়তে পড়তে একসময় ভৌমজলস্তর উন্মুক্ত হয়ে পড়ে। ফলে ওই স্থানে জলাশয় সৃষ্টি হয় এবং ক্রমশ উদ্ভিদ জন্মে অঞ্চলটিতে মনােরম পরিবেশ তৈরী হয়। শুষ্ক মরু অঞ্চলের মধ্যে এরকম ভাবে মরুদ্যান সৃষ্টি হয়। উদাঃ সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াধ একটি আদর্শ মরুদ্দ্যান।

৩.২ ‘উঁচু পার্বত্য উপত্যকায় ক্রেভাসের উপস্থিতি পর্বতারােহীদের সমস্যার অন্যতম কারণ।’—সংক্ষেপে এর ভৌগােলিক কারণ ব্যাখ্যা করাে। 

উত্তর: পর্বত ও হিমবাহের গাযে যে অসংখ্য ক্রেভাস থাকে সেগুলি পর্বতারােহীদের অভিযানের পথে বাধার সৃষ্টি করে। অনেক সময় এই ফাটলগুলিতে পর্বতারােহীরা পড়ে গিযেও প্রাণ হারান অথবা মারাত্মক চোট পান।


৪. নীচের প্রশ্নটির উত্তর দাও :     ৩x১=৩ 

মরু সম্প্রসারণ রােধের তিনটি উপায় উল্লেখ করাে। 

উত্তর: মরু অঞ্চলের সম্প্রসারণ রােধের জন্য বেশ কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায়। সেগুলি হল —

i)বৃক্ষরােপণ : মরু সম্প্রসারণ রােধের জন্য নির্বিচারে বৃক্ষচ্ছেদনের পরিমাণ হ্রাস করতে হবে এবং মরুভূমির প্রান্তে খরা সহনশীল বৃক্ষ ও লতাগুল্ম রােপনের দ্বারা গ্রিণ ওয়াল তৈরি করে চলনশীল বালিয়াডিগুলিকে স্থিতিশীল করতে হবে।

ii)তৃণম্ভর সৃষ্টি : মরুভূমির সম্প্রসারণের জন্য মরু অঞ্চলের অগভীর বালিস্তরে খরা প্রতিরােধী ঘাস লাগিয়ে কৃত্রি তৃণস্তর সৃষ্টি করা যেতে পারে। কারণ এই তৃণস্তর মরু অঞ্চলের শিখিল বালিকে ঢেকে দেয় বলে ওই বালির এক স্থান থেকে অন্য স্থানে উড়ে যাওয়ার সম্ভবনা হ্রাস পায়।

iii) পশুচারণ নিয়ন্ত্রণ : মরুভূমির প্রান্তে অনিয়ন্ত্রিত ভাবে পশুচারণ করলে তাদের পায়ের খুরের আঘাতে মৃত্তিকার উপরিভাগ থেকে তৃণস্তুর অপসারিত হয়ে যায়। ফলে মরুভূমির সম্প্রসারণ ঘটে। তাই মরু সম্প্রসারণ রােধের জন্য পশুচারণের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।


৫. নীচের প্রশ্নটির উত্তর দাও :     ৫x১=৫ 

  ঝুলন্ত উপত্যকা :  

        অনেক সময় প্রধান হিমবাহের দুপাশথেকে ছোট ছোট হিমবাহ বা উপহিমবাহ এসে প্রধান হিমবাহে মিলিত হয়। প্রধান হিমবাহের ক্ষয়কার্য বেশি হয় বলে তার দ্বারা সৃষ্ট উপত্যকা উপহিমবাহ সৃষ্ট উপত্যকার তুলনায় বেশি গভীর হয়। ফলের প্রধান হিমবাহের উপত্যকার সঙ্গে উপহিমবাহ সৃষ্ট ওইসব অগভীর উপত্যকার উচ্চতার পার্থক্য হয়। এইজন্য উপগ্হিমবাহ যেখানে এসে প্রধান হিমবাহে মেশে, সেই মিলনস্থল উপহিমবাহের উপত্যকা প্রধান হিমবাহ উপত্যকার ওপর ঝুলে থেকে ঝুলন্ত উপত্যকা সৃষ্টি করে। 

রসে মতানে :  

হিমবাহের প্রবাহ পথে ঢিবির মত আকৃতির শিলাখণ্ড থাকলে ওই শিলাখন্ডটির যেদিক থেকে হিমবাহ আসে সেই দিকে অবঘর্ষ প্রক্রিয়ায় শিলাখণ্ড মসৃণ এবং বিপরীত দিকে উৎপাটন প্রক্রিয়ায় এবড়োখেবড়ো বা অমসৃণ হয়। এই ধরনের ঢিবির নাম রসে মতানে । 

Table of Contents

Leave a Comment

error: Content is protected !!